বৃহস্পতিবার বিকাল ৪:৪৬, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ১৩ই জুন, ২০২৪ ইং

আল্লামা আহমদ শফি ও তাঁর জীবন বৃত্তান্ত

৭৩৬ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

এক মহা নায়কের তিরোধান, খলিফায়ে হোসাইন আহমদ মাদানী, মুকুটবিহীন সম্রাট, ঐতিহাসিক হেফাজতে ইসলামির আমির, প্রিন্সিপাল দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী, সভাপতি বেফাকুল মাদারিসিল ইসলামিয়া, হাজারো আলেম উলামার উস্তাদ আল্লামা আহমদ শফি রহঃ ১৮/৯/২০২০ সন্ধ্যায় ঢাকা আজগর আলী হসপিটালে ১০৩ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন- ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন।

জন্ম: ১৯১৬ সালে চট্রগ্রামের রাংগুনিয়া থানার পাখিয়ার টিলা গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। পিতা- বরকত আলী, মাতা-মেহেরুন্নেছা।

শিক্ষা: প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা পটিয়া ও জিরি মাদ্রাসায় করেন, এরপর হাটহাজারী মাদ্রাসায় চলে আসেন, ১৯৪১ সালে উচ্চতর শিক্ষার উদ্দেশ্যে দারুল উলুম দেওবন্দ চলে যান, সেখানে দাওরায়ে হাদিস শেষ করে, ইসলামি আইনশাস্ত্র (ফিক্বহ), তাফসির শাস্ত্রে পান্ডিত্য লাভ করেন। ১৯৪৬ সালে দেশে ফিরে হাটহাজারী মাদ্রাসায় শিক্ষকতার পেশায় কর্মজীবন শুরু করেন।

১৯৮৬ সাল থেকে ২০২০ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উনি উম্মুল মাদারিসের সুযোগ্য প্রিন্সিপাল ছিলেন। ২০০৮ সালে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি হেফাজতে ইসলাম গঠন করেন এবং সর্বসম্মতিক্রমে আমির নিযুক্ত হন।

প্রায় ৬০ বছর বুখারী শরিফের খিদমতে নিযুক্ত ছিলেন। উনার লিখিত উর্দু ভাষায় লিখিত গ্রন্থাবলী: ১. ফয়জুল জারি শরহে বুখারী, ২. আল বায়ানুল ফাসিল বাইয়ানুল হক্ব ওয়াল বাতিল, ৩. আল হুজ্জুল কাতিয়াহ লিদা ফিইন নাহাজাল খতিয়াহ, ৪. আল খাইরুল কাছির ফি উসুলিত তাফসির

৫. ইসলাম ও সিয়াসত
৬. ইজহারে হাক্বিক্বত
৭. তাকফিরে মুসলিম
৮. চান্দ রাওয়েজনা
৯. ফুয়ুজাতে আহমদীয়া

 

উনার লিখিত বাংলা ভাষায় লিখিত গ্রন্থাবলী

১. হক্ব ও বাতিলের চিরন্তন দ্বন্দ্ব
২. ইসলামি অর্থনীতি
৩. ইসলাম ও রাজনীতি
৪. সত্যের দিকে করুন আহবান
৫. সন্নাত ও বিদায়াতের সঠিক পরিচয়
৬. মুখোশ উন্মোচন
৭. কোরআন ও সুন্নাতের আলোকে আপনার নামাজ

পারিবারিক জীবনে উনি তিন মেয়ে ও দুই ছেলের জনক ছিলেন।

হাজার হাজার আলেম তৈরির কারিগর ছিলেন। উনার জানাযায় লক্ষ লক্ষ মানুষের উপস্থিতি প্রমাণ করে উনার মাক্ববুলিয়্যত কি পরিমাণের ছিল, ১৯/৯/২০২০ দুপুর দুই টায় জামেয়া মাঠে উনার বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফের ইমামতিতে জানাযা দিয়ে মাক্ববারায়ে জামেয়ায় উনাকে দাফন করা হয়।

আল্লাহ পাকের দরবারে আলিয়ায় বিনীতভাবে ফরিয়াদ করছি, আল্লাহ পাক যেন উনার জিন্দেগীর সকল অপরাধ কে ক্ষমা করে তামাম খিদমত গুলো কে কবুল করে উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌসের আ’লা মাক্বাম নসীব করেন; আমিন ইয়া রাব্বাল আলামিন।

Some text

ক্যাটাগরি: আত্মজীবনী

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি