বুধবার বিকাল ৫:৫৮, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং

ছাত্রদলে বিয়ের ট্যাগ: সংগঠন ধ্বংসের পাঁয়তারা নয় তো?

৫৭১ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

যে ছেলেটি ১০/১২ বছর ধরে রোদ বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে স্বৈরতন্ত্রের নির্মম অন্যায় অত্যাচার জেল জুলুম, মিথ্যে ও গায়েবি মামলার চরম নিপীড়ন সহ্য করে, নিজের ও পরিবারের ভবিষ্যৎ ধ্বংস করে শুধুমাত্র স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে দেশ ও দেশের মানুষের ভোটাধিকার ও মৌলিক অধিকার আদায়ে রাজপথে থেকে নিজের জীবনকে ধ্বংসের দাঁড় প্রান্তে নিয়ে দাঁড়িয়ে গেছে ।

তাকে পদবীর সন্মান দেওয়া হবে না! তার অপরাধ? সে বিবাহিত! আচ্ছা! একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে বিয়ে করা অপরাধ- এটা কোন ধর্মে কোন সংবিধানে কোথায় লেখা আছে ? জবাব দিবে বিএনপিতে থাকা চাটুকার প্রজন্ম। এখন রাজপথের যোদ্ধাদের বিয়ের ট্যাগ লাগিয়ে বিদায় করতে তোমরা এত তৎপর কেন? আনাড়িদের কাছে পদ পদবী বেঁচাকেনার ব্যবসা জমজমাট করতেই বিয়ের ট্যাগ লাগানো হচ্ছে না তো?

ব্যবসাই যদি তোমাদের মূখ্য হয়ে থাকে তাহলে ১২/১৩ বছর ধরে যারা রাজপথে ছিল, তখন ওদের কমিটি গুলো আটকে রাখলে কেন?
এত দিনে যদি ৪/৫ টি কমিটি ও দেওয়া হত
আজকের নির্যাতিতরা এত দিনে ছাত্রদল পেড়িয়ে যুবদল ও বিএনপিতে চলে যেত,
যার ফলশ্রুতিতে লাখো নতুন নেতৃত্ব এতদিনে গড়ে উঠত।

সেই সাথে দলের সাংগঠনিক শক্তি ও বৃদ্ধি পেত।।
ত্বরান্বিত হত স্বৈরাচার বিরুধী আন্দোলন ।
দেশের মানুষের ফিরে পেতে পারতো তাদের মৌলিক অধিকার দেশে প্রতিষ্টিত হতে পারতো গনতন্ত্রের সুবাতাস ।
কিন্তু !  এই সব কেন এত বছর করা হয়নি ।
তাহলে কি বলব আওয়ামীলীগের বেতনধারী দালাল রয়েছে আপনাদের মাঝে ?
সেই প্রশ্ন কিন্তু আপনা আপনিতেই চলে আসে !

যারা কেন্দ্রে বসে বসে আমাদের প্রাণের দলটিকে সাংগঠনিক ভাবে বিকলাঙ্গ করে দিচ্ছেন ।

এখনো সময় আছে যারা ত্যাগি ও নির্যাতিত পদবঞ্চিত সে যেই হোক, বিবাহিত কিংবা অবিবাহিত তাদেরকে যথাযথ মূল্যায়ন করে ছাত্রদলে পদায়ন করে সন্মানিত করা হোক,
অন্যথায়  আগামীতে কেন্দ্রীয় বিকালঙ্গ সিদ্ধান্ত নেওয়া কারো ডাকে আর কোন তরুণ ছাত্রদল করতে আসবে বলে মনে করি না ।
সুতরাং ।
সারা দেশের সকল নির্যাতিত ছাত্রদলের নেতা কর্মীদের
যথাযথ মূল্যায়নের মাধ্যমে নতুনদের ছাত্রদলে আসতে জন্য উৎসাহিত করা হোক।।
এটাই হোক আমাদের সকলের দাবী – আওয়াজ উঠুক সারা বাংলায় – বিবাহিত অবিবাহিত নয় দীর্ঘ দিন রাজপথে থাকা ছাত্রদলের নেতা কর্মীদের হাতেই তুলে দেওয়া হোক ছাত্রদলের নেতৃত্ব।
হোক সেটি অল্প সময়ের জন্য ।
তবু তারা তাদের পরিশ্রমের সন্মানে সন্মানিত হোক।
লেখক—-

মোঃ মাহফুজুর রহমান পুষ্প
দপ্তর সম্পাদক
জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখা ।

Some text

ক্যাটাগরি: চিন্তা

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি