শনিবার সন্ধ্যা ৬:২৮, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ১৮ই মে, ২০২৪ ইং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অপরূপ গ্রাম: প্রকৃতিঘেরা শিমরাইলকান্দি

৮৮৭ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

প্রকৃতিঘেরা শিমরাইলকান্দি। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের একমাত্র ব্যতিক্রমধর্মী গ্রাম, যার মধ্যে একই সঙ্গে শহরের সুযোগ-সুবিধা এবং গ্রামীণ পরিবেশ ও আবহাওয়ার সার্থক সমন্বয় ঘটেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের সচচেয়ে বড় গোরস্থান শিমরাইলকান্দিতে। সবচেয়ে বড় শ্মশান শিমরাইলকান্দিতে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার প্রধান বীজ গুদাম, চাষী ভবন, বিএডিসি- শিমরাইলকান্দিতে। গ্যাসফিল্ডও আছে। ইতিহাস-বিখ্যাত ‘তিতাস নদী’ বয়ে গিয়েছে মূলত শিমরাইলকান্দির উপর দিয়েই। আরো অনেক কিছু আছে এ গ্রামে দেখার ও গর্ব করার মতো। ইদানিং এর দক্ষিণ অংশটা পর্যটন এলাকা হিসেবে বেশ নাম কুড়িয়েছে।

প্রাকৃতিকভাবে শিমরাইলকান্দি গ্রামটি এক দুর্ভেদ্য নিরাপত্তাবেষ্টনীতে আছে। পুরো গ্রামটির পশ্চিম দিক রেললাইনে ঘেরা, দক্ষিণদিকে কুরুলিয়া খাল, পূর্বদিকে ইতহাসবিখ্যাত তিতাস নদী। শুধুমাত্র উত্তর-পশ্চিম কোণ দিয়ে মূল শহরের সঙ্গে এ গ্রামের প্রধান যোগাযোগ।

গ্রামটির অবস্থান মূল শহরের পূর্বদিকে। টি.এ রোডের কালীবাড়ি মোড় থেকেই শুরু, যা এখন পওয়ার হাউজ রোড হিসেবে পরিচিত। এখান থেকে পূর্বদিকে বিশাল অঞ্চলজুড়ে শিমরাইলকান্দি, যা তিতাস নদীর পূর্বদিকেও বিস্তৃত।

শহর ও পরিবেশবিদগণ বলছেন, অদূর ভবিষ্যতে শিমরাইলকান্দি গ্রামটির সম্ভাবনা খুবেই উজ্জ্বল। বিশেষ করে তারা বলছেন, তিতাস নদীটির দু-পাড়জুড়ে পরিকল্পিতভাবে আধুনিক স্থাপনা, স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, হাসপাতালসহ পর্যটন এলাকা হিসেবে গড়ে তোলা খুবই সম্ভব।

প্রতিবেদক: ছাইদুর রহমান ইমন

Some text

ক্যাটাগরি: খবর, প্রকৃতি ও পরিবেশ

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি