সোমবার রাত ১২:৫১, ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাঙের ছাতার মতো ডেন্টাল ক্লিনিক

৫২৬ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে অনেক ডেন্টাল ক্লিনিক। যেগুলিতে নাই কোন অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি। এমনকি নাই কোন অভিজ্ঞ ডাক্তার। নামেমাত্র ডেন্টাল টেকনিশিয়ান এর কোর্স করে অথবা কোন ডেন্টাল টেকনিশিয়ান এর সহকারি হিসেবে কাজ করে কিছুদিন পরই নিজে ডাক্তার বনে গিয়েছে। এবং তারা দেদারছে চালাচ্ছে দন্ত ডাক্তার হিসেবে পরিচয় দিয়ে নিজেদের ব্যবসা। এতে করে সাধারণ মানুষ ও গ্রামের মানুষ প্রতারিত হচ্ছে।

তাদের নাই কোন সার্টিফিকেট। অথচ নিজেদেরকে ডাক্তার বলে চালিয়ে যাচ্ছে। আবার তাদের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে একটি দালাল চক্র।  তারা এনে রোগীকে ঢুকিয়ে দিয়ে কমিশন নিচ্ছে এবং চিকিৎসার অবহেলা তো আছেই। তারপরে স্কেলিং করার নামে তারা হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। দাঁত বাঁধাই থেকে শুরু করে দাঁতের স্কেলিং, রুট ক্যানেল সব কিছু তারা করে।

এমন একজন ডাক্তারের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, তাদের নাকি অনেক অভিজ্ঞতা আছে। কেউ কেউ প্রশাসনকে ফাঁকি দেওয়ার জন্য ঝুলিয়ে রেখেছে একজন ডিগ্রিধারী দন্ত চিকিৎসকের নাম। অথচ তিনি বছরে একবার আসেন কিনা সন্দেহ। এ ব্যাপারে মাদ্রাসা রোডে একটি ক্লিনিকে সঙ্গে যোগাযোগ করলে উনি বলেন, আমার বাপে ওইরকম চিকিৎসক ছিলেন। আমিও চিকিৎসক। তার একজন সহকারীকেকে জিজ্ঞেস করলে তিনি জানান, দাঁত পরিষ্কার করতে পনেরশো থেকে দুই হাজার টাকা নেওয়া হয়। তাকে যখন প্রশ্ন করা হয়, আপনার কি কোন ডিগ্রী আছে? তখন তিনি বলেন, তার ছেলের নাকি ডিগ্রি আছে। ছেলের ডিগ্রি দিয়ে বাপে কিভাবে কাজ করে? এটাই সাধারণ মানুষের প্রশ্ন। এভাবে প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ ।

এ ব্যাপারে আমরা সিভিল সার্জনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। কিছুদিন আগে জেনারেল ক্লিনিকগুলোতে অভিযান চললেও দন্ত ক্লিনিকগুলোতে কোনরকম অভিযান চলেনি। আমরা ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসির আকুল আবেদন, অচিরেই এই ডিগ্রীবিহীন ভূয়া ডাক্তারদের সনাক্ত করা হোক এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

এইচ এম জাকারিয়া জাকির : সাংবাদিক

Some text

ক্যাটাগরি: খবর

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি