সোমবার রাত ২:২৮, ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ২৩শে জুন, ২০২৪ ইং

এক নজরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা

৯৭৪ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিক্রমা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রাম বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। শিক্ষা সংস্কৃতির পীঠস্থান রুপে পরিচিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাকে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক রাজধানী বলা হয়।বাংলাদেশের সংস্কৃতি কে আজও ধারন করে এই জেলা। ১৯৮৪ সালে ব্রাক্ষ্মবাড়িয়া জেলা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। তার আগে এটি কুমিল্লা জেলার একটি মহকুমা ছিল।

🌐নামকরনের ইতিহাস:-🌏

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নামকরণ নিয়ে একাধিক মত প্রচলিত আছে। লোকমুখে শোনা যায় যে সেন বংশের রাজত্ব্যকালে এই অঞ্চলে অভিজাত ব্রাহ্মণকুলের বড়ই অভাব ছিল। যার ফলে এ অঞ্চলে পূজা অর্চনার জন্য বিঘ্নতর সৃষ্টি হতো। এ সমস্যা নিরসনের জন্য সেন বংশের শেষ রাজা রাজা লক্ষণ সেন আদিসুর কন্যকুঞ্জ থেকে কয়েকটি ব্রাহ্মণ পরিবারকে এ অঞ্চলে নিয়ে আসেন। তাদের মধ্যে কিছু ব্রাহ্মণ পরিবার শহরের মৌলভী পাড়ায় বাড়ী তৈরী করে। সেই ব্রাহ্মণদের বাড়ির অবস্থানের কারণে এ জেলার নামকরণ ব্রাহ্মণবাড়ীয়া হয় বলে অনেকে বিশ্বাস করেন। অন্য একটি মতানুসারে দিল্লী থেকে আগত ইসলাম ধর্ম প্রচারক শাহ সুফী হযরত কাজী মাহমুদ শাহ এ শহর থেকে উল্লেখিত ব্রাহ্মণ পরিবার সমূহকে বেরিয়ে যাবার নির্দেশ প্রদান করেন , যা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া নামের উৎপত্তি হয়েছে বলে মনে করা হয় । ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আঞ্চলিক উচ্চারণ ‘বাওনবাইরা’ । ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিকৃত নাম ‘বি-বাড়িয়া’ বহুল প্রচলিত । যার ফলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঐতিহ্য ক্ষুণ্ণ হচ্ছে । এ অবস্থার উত্তরণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসন হতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে এবং ২০১১ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসন হতে সকল ক্ষেত্রে বি-বাড়িয়ার পরিবর্তে ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া’ লেখার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয় ।

🌙🌘অবস্থান ও আয়তন:-🌍

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আয়তন ১৯২৭.১১ বর্গ কিলোমিটার। এর উত্তরে হবিগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জ জেলা, দক্ষিণে কুমিল্লা জেলা, পূর্বে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য ও হবিগঞ্জ এবং পশ্চিমে মেঘনা নদী, নরসিংদী, কিশোরগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জ জেলার অবস্থান।

⭐🌟ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ৯টি উপজেলা:-
১ আশুগঞ্জ উপজেলা
২ আখাউড়া উপজেলা
৩ কসবা উপজেলা
৪ নবীনগর উপজেলা
৫ নাসিরনগর উপজেলা
৬ বাঞ্ছারামপুর উপজেলা
৭ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা
৮ সরাইল উপজেলা
৯ বিজয়নগর উপজেলা

🏜🕵👮কৃতি ব্যক্তিত্ব:-

ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ (১৮৬২ – ১৯৭২) – খ্যাতিমান সঙ্গীতজ্ঞ
আলী আকবর খান – বিশ্ববিখ্যাত শাস্ত্রীয় সঙ্গীত শিল্পী
অন্নপূর্ণা দেবী – সেনিয়া-মাইহার ঘরানার শাস্ত্রীয় সঙ্গীত শিল্পী
বাহাদুর খান – (১৯৩১-১৯৮৯) – বিখ্যাত সরোদ বাদক এবং চলচ্চিত্র সুরকার
কিরীট খান – (১৯৫৫-২০০৬) – বিখ্যাত সেতার বাদক
ফকির আফতাব উদ্দিন খাঁ (১৮৬২ – ১৯৩৩) – গীতিকার,সুরকার,গায়ক
ওস্তাদ আবেদ হোসেন খান (১৯২৯-১৯৯৬) – সেতারবাদক,সুরকার ও সংগীত পরিচালক
ওস্তাদ খাদেম হোসেন খান (১৯২২-১৯৯২) – সঙ্গীতশিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক
ওস্তাদ মীর কাশেম খান (১৯২৮-১৯৮৪) – সেতারশিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক
শেখ সাদী খান – বাংলাদেশের আধুনিক সঙ্গীতের স্থপতিদের একজন
ওস্তাদ খুরশিদ খান (১৯৩৫-২০১২) – সেনীয়া-মাইহার ঘরানার বিখ্যাত সেতার বাদক
ওস্তাদ মোহাম্মদ হোসেন খসরু – উচ্চাঙ্গসঙ্গীতশিল্পী
মনমোহন দত্ত – মলয়া সংগীতের জনক ও মরমী সাধক
আনন্দ চন্দ্র নন্দী- সঙ্গীতজ্ঞ ও সাধক
রামদুলাল মুন্সী – সঙ্গীতজ্ঞ ও সাধক
বিখ্যাত দলিল লেখক = রামরাইলের তারামোহন সুএধর (মুহুরি)
মহেন্দ্র চন্দ্র নন্দী (১৮৫৩-১৯৩২)- সঙ্গীতজ্ঞ,সাধক,ডাক্তার ও শিল্প উদ্যোক্তা
অমর পাল – প্রখ্যাত লোকসংগীতশিল্পী । ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁর কাছ থেকে দীক্ষা নেন
গিরীণ চক্রবর্তী – প্রখ্যাত লোকসংগীতশিল্পী
সুবল দাস (১৯২৭-২০০৫) – বিখ্যাত চলচ্চিত্র সঙ্গীত পরিচালক ও সুরকার ।
ঈসাখাঁ,
বিখ্যাত খাবার:-🍛🍚

তালের বড়া
ছানামুখী
রসমালাই

বিখ্যাত স্থান:-দর্শনীয় স্থান 🏖🌋🏔

কালভৈরব
সৌধ হীরণ্ময়
হাতিরপুল
কেল্লা শহীদ মাজার
গঙ্গাসাগর দীঘি
উলচাপাড়া মসজিদ
কাজী মাহমুদ শাহ (রহ.) মাজার
ছতুরা শরীফ
নাটঘর মন্দির
বিদ্যাকুট সতীদাহ মন্দির
লক্ষীপুর শহীদ সমাধিস্থল
ফারুকী পার্কের স্মৃতিস্থম্ভ
কচুয়া মাজার
জয়কুমার জমিদার বাড়ী
গুনয়াউক বাগান বাড়ি
ঘাগুটিয়া পদ্ম বিল,,
কোল্লাপাথর,,
ধরন্তি মিনি কক্সবাজার

★জনসংখ্যাঃ—–👨‍👨‍👦‍👦👨‍👨‍👧👩‍👩‍👧👩‍👩‍👦‍👦

(২০০১ সালের আদম শুমারী) মোট : ২৩,৯৮,২৫৪ জন পুরুষ : ১২,০৫,৫৫২ জন ,মহিলা : ১১,৯২,৭০২ জন
পরিবার সংখ্যা : ৪,২৯,৩৯০ স্বাক্ষরতা হার (+৭ বছর) : ৩৯.৪৫
পুরুষ : ৪২.২৬ মহিলা : ৩৬.৬৮
নির্বাচনী এলাকার নাম ও নম্বর
২৪৩ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ (নাসিরনগর উপজেলা এবং সদর উপজেলার বুধন্তি, চান্দুরা, হরষপুর ইউপি)
২৪৪ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল, আশুগঞ্জ উপজেলা এবং সদর উপজেলার মজলিশপুর, তালশহর পূর্ব ও বুধল ইউনিয়ন
২৪৫ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (বুধন্তি, চান্দুরা,হরষপুর,মজলিশপুর,তালশহর পূর্ব ও বুধল ইউনিয়ন ব্যতিত সদর উপজেলা)
২৪৬ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (আখাউড়া ও কসবা উপজেলা)
২৪৭ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫(বড়িকান্দি ও সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন ব্যতিত নবীনগর উপজেলা)
২৪৮ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ (বাঞ্ছারামপুর উপজেলা এবং নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি ও সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন
ভোটার পরিসংখ্যান (জেলা নির্বাচন অফিসের জানু/০৯ তথ্য অনুযায়ী)

ভোটার সংখ্যা মোট : ১৪,৪৪,০৭৮ জন পুরূষ : ৬,৭৭,৬২৮ জন মহিলা : ৭,৬৬,৪৫০ জন জলবায়ু
বৈশিষ্ট্য : আদ্র, নাতিশীতোষ্ণ ও স্বাস্থ্যপ্রদ

সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত : ১১৪.৬৫ ইঞ্চি
সর্বনিম্ন বৃষ্টিপাত : ৫৬.৪৩ ইঞ্চি
গড় বৃষ্টিপাত : ৭৮.০৬ ইঞ্চি

নদ-নদীঃ–🏞🏖

তিতাস, মেঘনা, আউলিয়াজুরী, কালাছড়ি, খাস্তি, ছিনাইহানি, ডোলভাঙ্গা, পাগলা, পুটিয়া, বলভদ্র, বলাক, বালিয়াজুড়ি, বালুয়া, বিজনা, বুড়ি, বেমালিয়া, মধ্যগঙ্গা, রোপা, লংঘুন, লাহুর, সোনাই, হাওড়া, হুরুল প্রভৃতি ।

➡ইউনিয়ন ৯৮টিঃ–

১। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর : ১১
২। আশুগঞ্জ উপজেলা : ০৭
৩। আখাউড়া উপজেলা : ০৫
৪। নবীনগর উপজেলা : ২০
৫। নাসিরনগর উপজেলা : ১৩
৬। কসবা উপজেলা : ১০
৭। বাঞ্ছারামপুর উপজেলা : ১৩
৮। সরাইল উপজেলা : ০৯
৯। বিজয় নগর উপজেলা : ১০

↔পৌরসভা ৪টিঃ–

১। ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা
২। আখাউড়া পৌরসভা
৩। নবীনগর পৌরসভা
৪। কসবা পৌরসভা

থানা মোট :– ০৯টি

স্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প : ০৭টি
অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প : ০৫টি
পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র : ০১টি
ডাকবাংলো : ০৮টি

★রাজস্বঃ—📌📍
মৌজা : ৯৯৩টি
উপজেলা ভূমি অফিস : ০৮টি
পৌর ভূমি অফিস : ০১টি
ইউনিয়ন ভূমি অফিস : ৭৫টি
জমি- কৃষি : ১,৯২,৭৫৯.৫১ হেক্টর
অকৃষি : ৭,৫২৯.৯৩ হেক্টর
খাস জমি- কৃষি : ৩,১৫৩.৭৫
হেক্টর
অকৃষি : ৭.৫০ হেক্টর
জলমহাল-সংখ্যা : ১৭৮টি
বদ্ধ (২০ একরের উর্ধ্বে) : ১৪৪টি
উন্মুক্ত : ৩১টি
খাস পুকুর : ৫০৩টি
বালুমহাল : ১৬টি
চা বাগান : ০১টি (হরিপুর টি এস্টেট)
দেবোত্তর সম্পত্তি : ৫৬.৪১৭৫ একর
আদর্শগ্রাম : ০৯টি

★কৃষি ও খাদ্যঃ—–🍉🍌🌶🍓🍍🍅🍐🍇🍋
আবাদী জমি : ১,৫০,৭৬৩ হেক্টর
এক ফসলী : ৫২,৬০১ হেক্টর
দুই ফসলী : ৮০,১৪১ হেক্টর
তিন ফসলী : ১৫,৮৫৫ হেক্টর
ফসলের নিবিড়তা : ১৭৫%
চাষের অধীন জমি – রবি : ১,৪০,০২২ হেক্টর
খরিফ (১) : ৩৫,৩৩৭ হেক্টর
খরিফ (২) : ৪৫,১৭৫ হেক্টর
প্রধান ফসল : ধান,গম,ভূট্টা,সরিষা,আলু,খেসারী,মসুর,পেঁয়াজ,সবজি
খাদ্য গুদাম সংখ্যা : ১০টি
ধারণ ক্ষমতা : ১৬,৫০০ মে:টন

★শিল্পঃ-🚭🔥
বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ডস কো:
আশুগঞ্জ তাপ বিদ্যু কেন্দ্র
আশুগঞ্জ সার কারখানা
বিসিক শিল্প নগরী
নৌযান নির্মাণ শিল্প
পাদুকা শিল্প

★শিক্ষা–🚾
সরকারি কলেজ ২টি
ডিগ্রী কলেজ : ১৯টি
উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ : ১৮ টি
মোট কলেজ : ৩৭ টি
এমপিওভুক্ত কলেজ : ৩৩টি
এমপিও বিহীন : ৪টি
মাধ্যমিক বিদ্যালয় : ১৮৭ টি
নিম্ন মাধ্যমিক : ২৫টি
মোট বিদ্যালয় : ২৩২টি
এমপিওভুক্ত : ২০৮ টি
এমপিও বিহীন : ২৪ টি
কামিল মাদ্রাসা : ৩টি
ফাজিল মাদ্রাসা : ৮টি
আলিম মাদ্রাসা : ২১ টি
দাখিল মাদ্রাসা : ৫১ টি
মোট মাদ্রাসা : ৮৩ টি
এমপিওভূক্ত : ৬৪ টি
এমপিও বিহীন : ১৯টি
সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় : ৬৯০ টি
রেজিস্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় : ২৮৬ টি
কমিউনিটি বিদ্যালয় : ৭৮ টি
পরীক্ষা বিদ্যালয় : ১টি
উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন প্রাথমিক বিদ্যালয় : ১৫ টি
কিন্ডার গার্টেন : ৮৭ টি
স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা : ২২টি
এনজিও পরিচালিত পূর্ণাঙ্গ বিদ্যালয় : ১টি

★স্বাস্থ্য–♿🐂🐪🐓🐐
জেলা হাসপাতাল : ০১ টি
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স : ০৬টি
বক্ষ ব্যাধি হাসপাতাল : ০১টি
বক্ষ ব্যাধি ক্লিনিক : ০১ টি
ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র : ২৪ টি
ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার : ৬৭ টি
গবাদী পশু্ ও হাঁসমুরগী
গরুর খামার : ৮২২টি
হাসের খামার : ১৪২টি
মুরগীর খামার : ৫১৬টি
ছাগলের খামার (মোট) : ১৮৫টি
বড় (২০-১০০টি ছাগল) : ১০টি
মাছারি (৬-১৯টি ছাগল) : ১৪টি
ছোট (২-৫টি ছাগল) : ১৬১
সূত্র : জেলা পশুসম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয়।

★মৎস্য–,🐟🐠
নদী ও খাল : ৩৪টি
পুকুর : ৭২৮টি (সরকারী) : ১৯৮৬০টি (বেসরকারী)
প্লাবন ভূমি : ৫০,৩৮৬ হেক্টর
কার্প হেচারির সংখ্যা : ৩১টি
কার্প নার্সারীর সংখ্যা : ২৩৮টি
মৎস্যজীবির সংখ্যা : ৫০,৪৩০ জন
মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি : ১৪৪টি
মাছ উৎপাদন : ৩১,০২৬.১৯ মে:টন
মোট মাছের চাহিদা : ৪২,৯২৪ মে:টন
মোট মাছের ঘাটতি : ১১,৮৯৭.৮১ মে:টন
সূত্র : জেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়।

★ধর্ম—–🕋🕌⛪📿
মসজিদ : ৪,৫০০টি
মন্দির : ১৫৮টি
গীর্জা : ০১টি

🚎🚂🚌যোগাযোগ ব্যবস্থাঃ-
সড়ক ও জনপথ
জাতীয় মহাসড়ক : ৮২ কি:মি:
আঞ্চলিক মহাসড়ক : ৮৩ কি:মি:(৭২ কি:মি: পাকা ও ১১ কি:মি: কাচা)
জেলা সড়ক : ১০২ কি:মি: (৯০ কি:মি: পাকা ও ১২ কি:মি: কাচা)
ব্রীজ : ১১৪ টি
কালভার্ট : ১৭৯ টি
সূত্র : সড়ক ও জনপথ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ।

➡🚩★এলজিইডিঃ——
উপজেলা সড়ক : ৪৫৬ কি:মি: (পাকা ২৬৯ কি:মি: + কাচা ১৮৭ কি:মি:)
ইউনিয়ন সড়ক : ৫৩৩ কি:মি: (পাকা ২৫৮ কি:মি: + কাচা ২৭৫ কি:মি:)
গ্রাম্য সড়ক (এ) : ৮০৩ কি:মি: (পাকা ২০৪ কি:মি: + কাচা ৫৯৮ কি:মি:)
গ্রাম্য সড়ক (বি) : ৯৭৩কি:মি: (পাকা ১২৯ কি:মি: + কাচা ৮৪৪ কি:মি:)
সূত্র : এলজিইডি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ।
রেলপথ : ৭৫ কি:মি:
রেলষ্টেশন : ১৪টি
রেল জংশন : ০১টি (আখাউড়া)
ভৈরব সেতু : ৯২৯ মিটার
ব্যাংক
সোনালী : ২৩টি
অগ্রণী : ১৩টি
জনতা : ২০টি

📰🗞★পত্র পত্রিকা——
দৈনিক : ১৫টি
সাপ্তাহিক : ২৮টি
পাক্ষিক : ০৬টি
মাসিক : ০২টি

🏛★কৃষ্টি/ঐতিহ্য——
সরাইলের হাসলি মোরগ লড়াই, নৌকা বাইচ, ভাদুঘরের বান্নী(মেলা)
খড়মপুর কেল্লাশাহ (র) মাজার শরীফ এর বার্ষিক ওরশ, নবীনগরের বৈশাখী মেলা ইত্যাদি।
দর্শনীয়/ঐতিহাসিক স্থান
বীর শ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের সমাধি : আখাউড়া
কোল্লাপাথর সমাধি : কসবা
শহীদ স্মৃতি সৌধ (ফারুকী পার্ক) : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর
আরিফাইল মসজিদ : সরাইল
কল্লাশহীদ (র:) মাজার শরীফ : আখাউড়া
ওস্তাদ আলাউদ্দিন খার বসত বাড়ি : নবীনগর
কাল ভৈরব বিগ্রহ : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর
হাতিরপুল : সরাইল
আনন্দময়ী কালিমুর্তি : সরাইল
বিপ্লবী উল্লাসকর দত্তের বাড়ি : সরাইল
বাশি হাতে শিব মন্দির : নবীনগর

★বিবিধ💎👬
যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র : ০১টি
সামাজিক প্রতিবন্দীদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র : ০১টি
টিভি রিলে কেন্দ্র : ০১টি
ডাকঘর : ১৫২টি।

গোলাম কিবরিয়া, লেখক ও ইতিহাস গবেষক এবং প্রাবন্ধিক।

 

Some text

ক্যাটাগরি: বিবিধ

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি