রবিবার বিকাল ৫:৩৩, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ১৯শে মে, ২০২৪ ইং

আমিনপুর সড়কে ট্রাক্টরের তাণ্ডবে অতিষ্ট পথচারী ও শিক্ষার্থীরা

৬৫২ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকাধীন আমিনপুর গ্রামের হাজারো মানুষের চলাচলের একমাত্র সড়ক এখন বেপরোয়া নিষিদ্ধ যন্ত্রদানব ট্রাক্টর এর দখলে । ট্রাক্টরৃ কৃষি কাজে ব্যবহারের জন্য ক্ষেত-খামারে থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে সেটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়কের প্রধান বাহন। উপজেলার সংযোগ সড়কগুলো এখন সড়ক নয় যেন কাঁদা ও ধুলা চাষের জমি। প্রশাসনের সামনেই বেপরোয়া ভাবে বিকট শব্দে বালুমাটি বোঝাই নিয়ে সাদা পাউডারের মত ধুলো উড়িয়ে এবং কাঁদা ছিটিয়ে ধাবিয়ে চলছে ট্রাক্টরগুলো। এ নিয়ে প্রশাসনের এখন আর নজরদারিতা নেই।

সারা শহর জুড়ে বিভিন্ন কৃষি জমি থেকে মাটি বোঝাই করে ট্রাক্টর দিয়ে বাড়ির ভিটা উচু করন ও ইট ভাটায় ব্যবহারের জন্য ডিসি সড়ক ও গ্রামীণ সড়কগুলোর উপর দিয়ে বেপরোয়া ভাবে চলাচল করছে। সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত শতাধিক ট্রাক্টর নদের বালু ও কৃষি জমি থেকে মাটি বোঝাই করে বিভিন্ন বাড়ির ভিটা উচু করন ও ইট ভাটায় যাচ্ছে। এর ফলে কাঁচা ও পাকা সড়কের বিভিন্ন স্থানে পীচঢালাই উঠে গিয়ে অসংখ্য গর্তে সৃষ্টি হয়েছে।এই সড়ক দিয়ে কোমলমতি স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষ জীবনের ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে।

দিনের বেলার সূর্যের আলোয় পিচ্ছিল মাটি ট্রাক্টরের বড় চাকায় পিষ্ট হয়ে ধুলায় সৃষ্টি হয়ে সড়ক ও সড়কের আশপাশ এলাকা সাদা ধূলায় আচ্ছন্ন হয়ে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। ফলে ঐ এলাকার জনস্বাস্থ্য হুমকীর মূখে পড়ছে। আমিনপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায় বডি থেকে এক ফুট উচু করে খোলা অবস্থায় মাটি বোঝাই নিয়ে প্রতিদিন ১৫/২০টি ট্রাক্টর বিকট শব্দে বেপরোয়া ভাবে চলাচল করছে আমিনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাদ্রাসা ও মক্তবের সামনে দিয়ে। যার ধরুন এই সড়কে আসা যাওয়া করা স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা চরম আতংকের মাঝে স্কুল. মসজিদ ও মাদ্রাসায় আসা যাওয়া করতে হচ্ছে ।

স্থানীয়রা জানান, সূর্যের আলো থাকার পরও রাস্তায় আশপাশ এলাকায় কুয়াশার মতো ট্রাক্টরের সৃষ্ট ধুলোয় অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে থাকে। আর ধুলোর মধ্যে দিয়ে চলাচল করায় সর্দি কাশি শ্বাসকষ্ট রোগে আক্রান্ত হচ্ছে প্রতিষ্ঠানে আসা সকল শিক্ষার্থী ও এলাকার সর্বস্তরের মানুষ। অবৈধ ট্রাক্টর গুলো পরিচালনাকারীরা এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ এর প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছে না। বিধায় ‘ অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে সড়কের দানব খ্যাত ট্রাক্টরগুলো। এমতাবস্থায় এই জনদূর্ভোগ লাগবে স্থানীয় প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

রিপোর্ট – মাহফুজুর রহমান পুষ্প

Some text

ক্যাটাগরি: খবর, নাগরিক সাংবাদিকতা

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি