মঙ্গলবার বিকাল ৫:৪৯, ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং

প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি- নবীনগরের বগডহরে সেতু চাই

১৮১৫ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগনর থানায় পূর্ব ইউনিয়নের একটি অবহেলিত গ্রাম বগডহর। তিতাস নদীর পাড়ে এটি অবস্থিত। এখানে সেতু নির্মাণে প্রধানমন্ত্রীকে এক আবেগঘন খোলা চিঠি

 

আসসালামু আলাইকুম, প্রিয় প্রধানমন্ত্রী! ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নবীনগর থানার পূর্ব-ইউনিয়নবাসীর হাজার সালাম ও শুভেচ্ছা গ্রহণ করুন। মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট আপনার সার্বিক মঙ্গল কামনা করছি।

অতঃপর,

হাজার বছরের ঐতিহাসিক স্থান, তিতাস নদীর পাড়ে অবস্থিত, সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন এক ইউনিয়নের একটি গ্রামের নাম বগডহর। এখানকার স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজপড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী এবং হাজার হাজার জনতার পক্ষ থেকে তিতাস নদীর উপর সেতু বাস্তবায়নের জন্য আজ আপনার নিকট একটি খোলা চিঠি লিখতে আমরা বাধ্য হচ্ছি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তিতাস নদীর হাজার বছরের ইতিহাসে, সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, তিতাস পাড়ের বগডহর গ্রামসহ কয়েকটি গ্রামের মানুষ বর্ষা ও শুকনো মৌসুমে নদীর ঢেউয়ের সাথে তাল মিলিয়ে অনন্তকাল স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজে পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীসহ সকল বয়সের নারী-পুরুষেরা নিত্যদিনের কাজ শেষ করে অতি কষ্টে জীবন অতিবাহিত করছেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশগ্রহণপূর্বক এ এলাকার মানুষের গূরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। স্বাধীনতা উত্তর ৪৭ বছরের মধ্যে আজ পর্যন্ত তিতাস পাড়ের বগডহর গ্রামের মানুষকে তিতাস নদীর উপর একটি সেতু নির্মাণের মাধ্যমে, সড়ক পথের সাথে যোগাযোগ সম্পর্ক স্থাপন করার চেষ্টা কেউ করেননি। দূঃখজনক হলেও সত্য, আমরা উন্নয়নবঞ্চিত। আমরা ভাগ্যাহত, দুর্ভাগা! আমরা আমাদের উত্তর প্রজন্মের নিকট প্রশ্নবিদ্ধ। আমরা এই অবহেলিত জীবন নিয়েই আজো বেঁচে আছি।

আমরা কৃষক, দেশের জন্য খাদ্য ফলাই। আমাদের সন্তানেরা বিদেশ থেকে অনেক কষ্ট করে দেশের জন্য রেমিট্যান্স পাঠায়। আমাদের সন্তানেরা শিক্ষা অর্জন করে দেশের কল্যাণে কাজ করে। তবুও কেন আমরা যুগের পর যুগ ধরে এমনভাবে অবহেলিত রয়েছি? কেন আমরা আমাদের সন্তানদের নিজের মুখ দেখাতে পারি না?

স্বাধীনতা উত্তর ৪৭ বছরের মধ্যে আজ পর্যন্ত তিতাস পাড়ের বগডহর গ্রামের মানুষকে তিতাস নদীর উপর একটি সেতু নির্মাণের মাধ্যমে, সড়ক পথের সাথে যোগাযোগ সম্পর্ক স্থাপন করার চেষ্টা কেউ করেননি। দূঃখজনক হলেও সত্য, আমরা উন্নয়নবঞ্চিত। আমরা ভাগ্যাহত, দুর্ভাগা! আমরা আমাদের উত্তর প্রজন্মের নিকট প্রশ্নবিদ্ধ। আমরা এই অবহেলিত জীবন নিয়েই বেঁচে আছি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী! আপনি গণমানুষের প্রাণপ্রিয় নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী। আপনি অসহায়, অবহেলিত ও দরিদ্র মানুষের মনের ভাষা ও আর্তনাদ বুঝেন। বুকের ব্যথা ও হাহাকার বুঝেন। আপনার মাধ্যমে আজ দেশ খাদ্যে স্বনির্ভরতা অর্জন করেছে। আপনার মাধ্যমে আজ বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশে হিসাবে বিশ্বে পরিচিতি লাভ করেছে। সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রেও আপনার সরকারের ১০০ ভাগ সফলতা। আপনার সকল সফলতাই, আমাদেরকে সামনে চলার মনোবল সৃষ্টি করে।

অতএব, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বগডহর গ্রামে তিতাস নদীর উপর একটি সেতু নির্মাণের মাধ্যমে এলাকার হাজার হাজার মানুষকে আমাদের প্রিয় থানা ও জেলার সড়ক পথের সাথে সম্পৃক্ত করে নাগরিক জীবনের উন্নতি ঘটানোর সুযোগ করে দিন। এ বিষয়ে আপনার আন্তরিকতা ও সুদৃষ্টি কামনা করছি।

সবশেষে আপনার সুস্থতা ও সার্বিক মঙ্গল কামনা করছি।

বিনীত

বগডহর গ্রামসহ নবীনগর পূর্ব-ইউনিয়নের

সর্বস্তরের জনগণ

Some text

ক্যাটাগরি: নাগরিক সাংবাদিকতা, মতামত

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি