সোমবার বিকাল ৩:৪২, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ২৭শে মে, ২০২৪ ইং

শুভেচ্ছা সম্পাদকীয়

দেশ দর্শন

আমাদের জানামতে, বাংলা অনলাইন জগতে আমরাই একমাত্র (এখনো পর্যন্ত) পোর্টালের প্রথম পৃষ্ঠার প্রথম দিকেই কলাম, মিনি কলাম, ব্লগ, নাগরিক সাংবাদিকতা প্রভৃতি মূল মূল বিষয়গুলোকে নিয়ে এসেছি। নবীন-প্রবীণ একসঙ্গে করার প্রয়াস পেয়েছি। অন্যদিকে নিউজ, ভিউজ, সাক্ষাৎকার ও প্রতিবেদনেও পিছিয়ে থাকার ইচ্ছে নেই। বাকি কথা আরেকদিন। আপাতত সাইটটা ভিজিট করে আপনারই মূল্যায়ন ও বিচার করুন।

চিন্তা হচ্ছে মানবীয় সমস্ত কর্মকাণ্ডের প্রাণ। সুস্থ ও স্বচ্ছ চিন্তা যে কোনো ভালো কাজের ভিত্তি। এ চিন্তার জগতে আমাদের দৈন্য এখন স্পষ্ট। সমাজের সিংহভাগ মানুষের চিন্তার সময় নেই। এরা বেকারত্ব, হতাশা, প্রতিহিংসা, অসুস্থ প্রতিযোগিতায় আকণ্ঠ নিমজ্জিত। যে স্বল্পসংখ্যক মানুষের সময় আছে তাদের চিন্তা বিভ্রান্ত হচ্ছে চারপাশের অনাকাঙ্ক্ষিত তর্ক-বিতর্কে; অস্পষ্ট ধ্যান-ধারণায়। এ পরিস্থিতিতে সমাজের সামগ্রিক চিন্তাজগতে ইতিবাচক পরিবর্তনের প্রয়াস চালানো অপরিহার্য। সে লক্ষ্যেই অপ্রস্তুত যাত্রা শুরু করেছে ‘দেশ দর্শন ডটকম’। ভিন্নতা এতে সুস্পষ্ট। তবে প্রকৃত কল্যাণকামিতায় ভিন্নতাই যথেষ্ট নয়, আরো অনেক শর্ত আছে, যার সব হয়তো আমরাও জানি না। তাই আপনাদের সার্বিক সহযোগিতা, সহমর্মিতা ও সমালোচনা একান্ত কাম্য।

দুই. দৈনিক পত্রিকায়, সাপ্তাহিক-পাক্ষিক ম্যাগাজিনে, অন্যান্য নিয়মিত অনিয়মিত ছোট বড় কাগজে এবং হাজারো অনলাইন পোর্টালে প্রতিদিন অসংখ্য কলাম, প্রবন্ধ-নিবন্ধ, মতামতধর্মী লেখা প্রকাশিত হচ্ছে। প্রতিটি কাগজে-অনলাইনে অসংখ্য লেখার ভিড়ে নির্দিষ্ট কোনো লেখা বা লেখকের নাম খুঁজে পাওয়া মুশকিল। কেন এতসব লেখা? কী হচ্ছে এসব লেখায়? যারা লিখছেন, ছাপছেন বা প্রকাশ করছেন তাদের টাকা, চিন্তা-চেতনা, কাগজ-কালির অপচয় হচ্ছে কি না ভেবে দেখার বিষয়। তার চেয়েও বড় কথা, লক্ষ লক্ষ পাঠকের মাথা কতটুকু ঠিক থাকছে চারপাশের এতসব তর্ক-বিতর্কে? এতে করে বিতর্ক কমছে না বাড়ছে, হানাহানি কমছে না বাড়ছে, সন্দেহ-সংশয় কমছে না বাড়ছে তা চিন্তাশীল লেখক-পাঠক-সম্পাদক-প্রকাশকের অবশ্যই বিবেচনার দাবি রাখে।

এমতাবস্থায় ক্লান্ত-বিরক্ত পাঠকের হাতে আরেকটি কাগজ ধরিয়ে দেয়া বা পোর্টালে নিমগ্ন হতে বলা মারাত্মক জুলুম বৈ কিছুই নয়। তারপরও এ জুলুমটি না করে পারছি না, চলতি ধারার বাইরে আমাদের কিছু মতামত ও দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরতে। সমাজকে, দেশকে, মানুষকে, আমাকে, আপনাকে, সঠিক পর্যালোচনার দাবি নিয়ে আমরা আপনাদের সামনে উপস্থিত। দয়া করে আমাদের ক্ষমা করবেন।

আমরা দায়সারা গোছের, পেশাগত চিন্তার, গতানুগতিক সংশয়-বিতর্কের, শাখাগত সমস্যার ফিরিস্তি বয়ানের এতসব লেখা আপনাদের সামনে হাজির করতে চাই না। প্রতিটি সংখ্যায় অল্প ক’টি লেখা যথার্থ পর্যালোচনা ও সমালোচনার দাবি নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির করতে চাই। এবং আমাদের পোর্টালটিতে বাছাই করা লেখা, চিন্তা, মতামত ও বিশ্লেষণ তুলে ধরতে চাই। আমরা বিশ্বাস করি, প্রকৃত পরিবর্তনের জন্য, সমাজকে নাড়া দেয়ার জন্য, চিন্তার খোরাক দেয়ার জন্য ভালো মানের অল্প লেখাই যথেষ্ট। তবে যদি আমরা মানসম্পন্ন চিন্তাশীল ব্যাপকসংখ্যক পাঠক-লেখক তৈরি করতে পারি তাহলে তাদের মতামত প্রকাশে কলেবর বৃদ্ধি করার ইচ্ছে আছে।

তিন. দেশ-বিদেশের প্রতি মুহূর্তের ‘ঘটনার’ সংবাদ এখন প্রায় প্রত্যেকের হাতের নাগালেই। চাইলেই পাচ্ছেন, না চাইলেও। কিন্তু প্রশ্ন জাগে, এসব সংবাদ আমাদের কতটুকু সচেতন বা আত্মসচেতন করছে? তর্ক তোলা যায় বিস্তর। কিন্তু না, তর্ক করার বা শোনার ইচ্ছে ও সময় কোনোটাই আমাদের নেই। কারণ আজকাল তর্কের অভাব নেই। সোশ্যাল মিডিয়া, প্রিন্ট-ইলেকট্রনিক মিডিয়া, চায়ের দোকানে, হাটে-ঘাটে-মাঠে তর্ক-বিতর্ক বিস্তর। তাহলে আমরা যা পেশ করছি- এগুলো কী? কেবলই তর্ক-বিতর্ক নয়? প্রশ্নটা আজকের মতো থাকুক। সব কথা বলতে হয় না। কিছু বুঝে নিতে হয়, কিছু নিজেরা চিন্তা করে বের করে নিতে হয়। নইলে ব্রেন ডেম হয়ে যাবে।

আমাদের জানামতে, বাংলা অনলাইন জগতে আমরাই একমাত্র (এখনো পর্যন্ত) পোর্টালের প্রথম পৃষ্ঠার প্রথম দিকেই কলাম, মিনি কলাম, ব্লগ, নাগরিক সাংবাদিকতা প্রভৃতি মূল মূল বিষয়গুলোকে নিয়ে এসেছি। নবীন-প্রবীণ একসঙ্গে করার প্রয়াস পেয়েছি। অন্যদিকে নিউজ, ভিউজ, সাক্ষাৎকার ও প্রতিবেদনেও পিছিয়ে থাকার ইচ্ছে নেই। বাকি কথা আরেকদিন। আপাতত সাইটটা ভিজিট করে আপনারাই মূল্যায়ন ও বিচার করুন।

–সম্পাদক প্যানেল

 

ক্যাটাগরি: প্রধান কলাম,  সম্পাদকীয়

ট্যাগ:

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply