মঙ্গলবার রাত ৮:৩৭, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ১৮ই জুন, ২০২৪ ইং

সড়কের দুরবস্থা ও রাজধানীর পশুর হাট

সরকার জুম্মান

শুধু সড়ক ব্যবস্থার অবনতির জন্য গরুর হাটেই সমস্যা এমন নয়। ঈদে ঘর মূখ মানুষের চরম দূর্ভোগ সাথে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, তীব্র পরিবহন সংকট। রাতে রাজধানীর সায়দাবাদ বাস টার্মিনাল গিয়ে দেখা যায় যাত্রীদের ভীড়।

 

ঢাকার যাত্রী ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের দুর্ভোগ বাড়ছে গুণিতক হারে। গত রাতের এক পশলা বৃষ্টিতে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ গরুর হাটে বড় গরু বিক্রিতে ধ্বস। মাঝারি ধরনের গরুর চাহিদা বৃদ্ধি। বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা ভালো না থাকায় রাস্তায় রাস্তায় পানি জমে যায়। বড় গরু নিয়ে পানির মধ্য দিয়ে চলাচল করতে অসুবিধা হয়।

তীব্র যানজটের জন্য সঠিক সময়ে গরু না আসতে পারা ও ঈদে দীর্ঘ ছুটির কারণে, বিক্রেতাদের ক্রেতা চাহিদা ও স্থানীয়দের ক্রয় সমীকরণ না মেলা। হঠাৎ বৃষ্টি হওয়ায় পরিস্থিতি আরও হতাশা এনে দিয়েছে গরু ব্যবসায়ীদের মাঝে। রাজধানীর গেন্ডারিয়া হাটে কুষ্টিয়া থেকে আসা এক বিক্রেতার সাথে আলাপে জানা যায়, তার তিন লক্ষ পন্চাশ হাজার টাকা দামের গরু প্রথমদিকে তিন লক্ষ টাকা দাম হাঁকালেও পরবর্তীতে দুই লক্ষ বিশ হাজার টাকার উপরে দাম উঠছে না। ঝিনাইদহ থেকে আনা আরোও একটি গরুর দাম ছয় লক্ষ টাকা হলেও গরুর দাম তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার বলে চলে যাচ্ছে। বেশির ভাগ বড় গরু বিক্রেতা হতাশ।

ঈদের ছুটি লক্ষ করে প্রাথমিক পর্যায়ে মধ্যবিত্ত ক্রেতার সংখ্যা কম থাকায় মাঝারি আকারের গরু বিক্রেতারা বাজার বিবেচনায় সীমিত লাভে গরু বিক্রি করায় বাজারে মাঝারি আকারে গরুর কিছুটা সংকট পরেছে। তবে হাট ব্যবস্থাপকদের সাথে আলাপে জানা যায় যানজট পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে এ সংকট পরিস্থিতি উন্নতি হবে।কিছুদিন পূর্বেই ছাত্ররা সড়ক ব্যবস্থা নিয়ে আন্দোলন করল। রাস্তার এই পরিস্থিতি বজায় থাকার কারণে বিশ্লেকগণ মনে করছেন, তাদের এই আন্দোলনে দেশের সড়ক ব্যবস্থার নূন্যতম পরিমাণ পরিবর্তন হয়নি।

শুধু সড়ক ব্যবস্থার অবনতির জন্য গরুর হাটেই সমস্যা এমন নয়। ঈদে ঘর মূখ মানুষের চরম দূর্ভোগ সাথে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, তীব্র পরিবহন সংকট। রাতে রাজধানীর সায়দাবাদ বাস টার্মিনাল গিয়ে দেখা যায় যাত্রীদের ভীড়। বৃষ্টিতে ভিজে নারী, পুরুষ, শিশু, বৃদ্ধ সবার চরম ভোগান্তি ও পরিবহন শ্রমিক এবং সরকারের প্রতি আক্ষেপ প্রকাশের অন্ত নেই। মনিটরিং ব্যবস্থা, পরিবহন সংশ্লিষ্টদের অবহেলা, দালালদের দৌরাত্ম্য নিয়ে প্রশ্ন তুলছে যাত্রীগণ।আক্ষেপের সঙ্গে তার করুণ আকুতি জানায়, প্রশাসন যে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে সড়ক কে নিরাপদ করে, যাতে করে তারা পরিবার সহ নিরাপত্তার সাথে নিশ্চিন্তে ঘরে ফিরতে পারে।

ক্যাটাগরি: প্রধান খবর,  সারাদেশ

ট্যাগ:

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply