বৃহস্পতিবার ভোর ৫:২১, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ. ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

টাউনখালের নাব্যতা ফেরাতে নোঙরের পরিচ্ছন্নতা অভিযান

২৪১ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

নদী নিরাপত্তার সামাজিক সংগঠন ‘নোঙর’ এর পক্ষ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঐতিহ্যবাহী টাউন খালের নাব্যতা ফেরাতে ও নৌকা চলাচলে বাধাগ্রস্থ ৪টি সাঁকো’সহ অবৈধ স্থাপনা অপসারণে খাল ঘিরে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

শনিবার (১৪ আগস্ট) সকাল থেকে দিনব্যাপী এই পরিচ্ছন্নতা অভিযান চলে। টাউন খালের থানা ঘাটের পাশে এ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজউদ্দিন জামি। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ‘নোঙর’ বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা সুমন শামস। ‘নোঙর’ জেলা শাখার সভাপতি শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান এড. মো. লোকমান হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি ইব্রাহিম খান সাদাত, সাংবাদিক ও আবৃত্তিকার মো. মনির হোসেন, সংগঠনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক খালেদা মুন্নী প্রমূখ।

খালের বিভিন্ন অংশে থাকা অবৈধ সাঁকো অপসারণ করে নৌ চলাচলের ব্যবস্থা করতে দাবী জানান বক্তারা। পরে টাউন খালের আশপাশসহ বিভিন্ন অংশে পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালান। অভিযানে শহরের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ ‘নোঙর’ এর সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঐতিহ্যবাহী টাউন খালটি দখল-দূষনের ফলে দিন-দিন নিজের অস্তিত্ব হারিয়ে বর্তমানে বিলিন হওয়ার পথে। বিভিন্ন সময় খালটি পরিচ্ছন্নতার উদ্যোগ নেয়া হলেও তার তেমন কোন কার্যকর ভূমিকা নেই। দিনের পর দিন খালটির বিভিন্ন অংশে দখলের প্রতিযোগিতা বাড়ছে। এতে করে জেলা ঐতিহ্যের সাথে মিশে থাকা খালটি এখন সরু ড্রেনে পরিণত হয়েছে। তাই এই খালটিকে বাঁচাতে জনসচেতনতা গড়ে তোলার পাশাপাশি খালটির বিভিন্ন অংশ দখলমুক্ত করতে হবে। শুধু তাই নয় এর নাব্যতা ফেরাতে দ্রুত সংশ্লিষ্টদের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। অন্যথায় খালটি কেবল স্মৃতি হয়েই থেকে যাবে বলেও উল্লেখ করেন বক্তারা।

উল্লেখ্য, খালটি তিতাস নদীর টানবাজার এলাকা থেকে সৃষ্টি হয়ে শহরের ভেতর দিয়ে গোকার্ন ঘাট পর্যন্ত প্রবাহিত হয়ে ফের তিতাস নদীতেই মিলিত হয়েছে।

Some text

ক্যাটাগরি: মতামত

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি