বৃহস্পতিবার সকাল ৬:০০, ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ. ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

স্বভাব আর চরিত্রের মৌলিক পার্থক্য

৫৪২ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

স্বভাব আর চরিত্রের মধ্যে একটা মৌলিক পার্থক্য হলো, স্বভাব পরিবর্তনযোগ্য, চরিত্র তা নয়| চরিত্রের আরেক নাম তাই ধর্ম| যেমন লোহার একটা ভৌত ধর্ম হচ্ছে, তাকে আঘাত করলে সে একটা বিশেষ শব্দ করে| লোহার রাসায়নিক ধর্ম হলো, তাকে খোলা বাতাসে ফেলে রাখলে তার শরীরে মরিচার আস্তরণ পড়ে| মানুষ বস্তু নয়, কিন্তু সে বস্তু থেকে তৈরি চেতনাসমৃদ্ধ একটা অস্তিত্ব| তাই তার দুটো ধর্ম- একটা হচ্ছে বস্তু ধর্ম, যার ফলশ্রুতিতে তার রোগ ব্যধি হয়, শরীর ক্ষয়ে যায়, বার্ধক্য আসে ইত্যাদি| তার আরেকটা ধর্ম তার মানসিক স্বত্তার চাহিদার কারণে তৈরি হয়| এই ধর্মের নাম মানবধর্ম| এই ধর্মটা পরিবর্তনযোগ্য|

মানুষ তার বহুমুখী ও নানামুখী স্বার্থের কারণে এই ধর্মের পরিবর্তন, পরিবর্ধন করে থাকে| এইসব করতে গিয়ে তার আদি মানব ধর্মের অনেক বৈশিষ্ট চাপা পড়ে যায়।

তবে এটা নির্ধিধায় বলা যায়, ধর্ম যদি চরিত্রের অনড়তা না নিয়ে স্বভাবের মতন স্থিতিস্থাপক হতো তবে সময়ের সাথে সঙ্গতি রেখে নিজেকে কিছুটা বদলে সে মানব কল্যানে আরও অনেক অবদান রাখতে সক্ষম হতো|

প্রকৃতপক্ষে মানবধর্ম একটা স্বভাব-ধর্ম| তাই তার ব্যপ্তি, গ্রহণযোগ্যতা, চাহিদা ও উপযোগীতা বিশ্বজনীন ও সার্বজনীন|

Some text

ক্যাটাগরি: মতামত

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি