শনিবার সন্ধ্যা ৬:৪৮, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ. ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

প্রশাসনের দক্ষতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে চাই: মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী

৩৭৭ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী তান শ্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন বলেন, এখন সরকারী কর্মীদের দায়িত্ব নতুন আদর্শকে একটি সংস্কৃতিতে তৈরি করা যাতে জনসেবা কার্যকরভাবে পৌঁছে যায়।

“সরকারী পর্যায়ে, প্রশাসনের দক্ষতা এবং স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার মতো সততা ও শাসন ব্যবস্থার উন্নয়নে আরও বেশি উদ্যোগ গ্রহণ করা জরুরি।

“স্থানীয় কর্তৃপক্ষ যেহেতু প্রায়শই দুর্নীতির মুখোমুখি হয়, তাদের মধ্যে অন্যতম, এই অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রচেষ্টা একটি গুরুত্বপূর্ণ এজেন্ডা থাকা উচিত যা তাদের কর্মীদের মধ্যে ব্যাপকভাবে প্রয়োগ করা উচিৎ।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য উপলক্ষে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ কর্মচারীদের মিলিত জাতীয় ইউনিয়নের ২৭ তম ত্রৈমাসিক সাধারণ সভা কার্যত সম্পাদন করতে গিয়ে তিনি বলেন, “এটি হ’ল যাতে আমরা কোনও মান ও নীতি নীতিমালার সাথে সমঝোতা না করেই সততার সাথে একটি কাজের সংস্কৃতি তৈরি করতে পারি।”

এছাড়াও উক্ত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন উপদ্বীপ মালয়েশিয়ার আনুলির সভাপতি দাতুক আজিহ মুদা এবং কংগ্রেস অফ ইউনিয়ন অফ এমপ্লয়িজ অফ পাবলিক অ্যান্ড সিভিল সার্ভিসেস (কুয়েপ্যাকস) এর সভাপতি আদনান ম্যাট।

নিজের ১০ মিনিটের ভিডিও ভাষণে, প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলিকে তাদের এলাকার বর্তমান পরিস্থিতি আরও ভালভাবে বুঝতে আরও বেশি সময় দেওয়ার আহ্বান জানান, তাদের কর্মীদের দ্বারা নিয়মিত যেসব বৈঠক করেন তাদের মুখোমুখি সমস্যাগুলি তদারকি করা ছাড়াও জনগণ ও তাদের সমস্যা সমাধানের জন্য কার্যকর ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

তিনি সবার মঙ্গল নিশ্চিত করার জন্য তাদের সদস্যদের বিশেষত সরকারী কর্মচারীদের মধ্যে সমস্যা সমাধানের জন্য কিউপ্যাকদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার জন্য অনুুলের প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানান।

তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন “আমি আশা করি প্রতিটি বেসামরিক কর্মচারীর অধিকার ও কল্যাণকে যথাসম্ভব সর্বোত্তম উপায়ে সুরক্ষিত করতে আমরা সবাই একত্রিত হয়ে কাজ করতে পারি।

তিনি আরও বলেন, আমি আশাবাদী আওলা আবাসন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় এবং এর সংস্থাগুলির সহযোগিতায় স্থানীয় জনগোষ্ঠী সরকারের চোখ ও কান হিসাবে ভূমিকা পালন করবে।

মহিউদ্দিন বলেন যে,  তিনি এই মহামারী চলাকালীন সময়ে সকল সম্প্রদায়ের সুরক্ষার জন্য তাদের সময় এবং শক্তি ত্যাগ করেছেন, প্রথম সারির কর্মচারীসহ বেসামরিক কর্মচারীদের কল্যাণ সম্পর্কে সচেতন এবং উদ্বিগ্ন।

যেমন, প্রশংসা ও সিভিল সার্ভিস কর্মীদের অবদানের স্বীকৃতি হিসাবে তিনি বলেন, সম্প্রতি ২০২১ সালের বাজেটের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উদ্যোগের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল, এর মধ্যে গ্রেড ৫ এবং এর নিচে সরকারী কর্মচারীদের আরএম ০০ একক অফ বিশেষ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।  যখন পেনশনবিহীন সরকারী পেনশনার এবং প্রবীণরা প্রত্যেকে ৩০০ রিংগিত করে পাবেন।

“মহামারীটি মোকাবেলায় তাদের প্রচেষ্টার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় অগ্রণী নেতাদের মার্চ মাস থেকে প্রাপ্ত বিশেষ আরএম ০০ ভাতা ছাড়াও এক অফ অফ আরএম ৫০০ প্রদান করা হয়েছিল।

“জাতীয় দুর্যোগ পরিচালনা এজেন্সি কর্তৃক নির্ধারিত মানদণ্ডের ভিত্তিতে যোগ্যতা অর্জনকারী অন্যান্য ফ্রন্ট লাইনের কর্মীরা আরএম ৩০০ এর এক অফ পেমেন্ট পাবেন।

Some text

ক্যাটাগরি: খবর

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি