রবিবার বিকাল ৪:০২, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ১৬ই জুন, ২০২৪ ইং

বিজয়নগরে নৌকাবাইচ: ব্যাপক জনসমাগম, প্রশাসন নিরব!

৪৩৯ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

করোনা মহামারীতে সারা পৃথিবী বিপর্যস্ত, বাংলাদেশও এ মহারারীতে আক্রান্ত। সারা পৃথীবিতে মহামারী আকার ধারণ করায় বাংলাদেশে ব্যাপক প্রাণহানি ঘটেছে। এর প্রভাবে সারা দেশে সরকার কর্তৃক জনসচেতনার লক্ষ্যে গ্রহণ করা হয়েছে নানা পদক্ষেপ। গণজমায়তের উপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে করোনার কারণে। আর ঘর থেকে বেড় হলে মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

সরকার কর্তৃক নিয়মগুলো ভঙ্গ করার দায়ে সারা দেশে চালানো হচ্ছে ভ্রাম্যমান আদালত। জনসচেতনায় মাঠ পর্যায় কাজ করছে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠ পর্যায়ের প্রশাসন। সরকারি সকল নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে স্থানীয় এক ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে ব্যাপক মানুষের সমাগম করে লোহর নদী ও হুগলি বিলে নৌকা বাইচের প্রতিযোগিতা করা হয় স্থানীয় প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে।

জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের হুগলি বিলে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা হয়। এতে আশেপাশের কয়েক ইউনিয়ন থেকে হাজারো দর্শকের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। হরষপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য মোঃ কাউছার আহমেদ ও হরষপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও এক্তারপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহ আলম এর নৌকার মধ্যে এ নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠিত হয়।

গত মঙ্গলবার (২৯সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪ টায় বুল্লা এলাকায় হুগলি বিলে এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় হরষপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য মোঃ কাউছার আহমেদ নৌকাকে পরাজিত করে ও হরষপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও এক্তারপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মো: শাহ আলম মাস্টারের নৌকা জয় লাভ করেন। এছাড়াও বুল্লা গ্রামের মো: বাসু মিয়ার নৌকা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ না করে শুধু দর্শকদের সামনে অনুশীলন করেন। নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা শেষে আয়োজকদের পক্ষ থেকে যুবলীগনেতা ও ইউপি সদস্য মোঃ কাউছার আহমেদের অর্থায়নে বিজয়ী দলকে একটি খাসি উপহার দেওয়া হয়।

এদিকে বিশ্বব্যাপী করোনার মহামারী দুর্যোগকালীন সময়ে সরকার বিভিন্ন জায়গার সকলে গণজমায়েত এড়িয়ে চলার নির্দেশনাসহ মাস্ক ব্যবহারের জন্য শতভাগ নিশ্চিত করার জন্য মাঠ পর্যায় কাজ করে যাচ্ছেন প্রশাসন। বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী বুড়িগঙ্গা, তিতাস, মেঘনা নদীতে সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা এবছর অনুষ্টিত হচ্ছে না। বড় বড় নৌকা বাইচ না হলেও স্থানীয়ভাবে লোহর নদী ও হুগলি বিলে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্টিত হয়েছে। নৌকাবাইচকে কেন্দ্র করে উপজেলাে হরষপুর ইউনিয়ন, পাহাড়পুর ইউনিয়ন, বুধন্তী ইউনিয়ন, চান্দুরা ইউনিয়ন, ইছাপুরা ইউনিয়নসহ পার্শ্ববর্তী মাধবপুর উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়ন,বহরা ইউনিয়ন,চৌমুহনী ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষের সমাগম হয়েছে।

এসবে সামাজিক দূরত্ব মানা তো দূরের কথা, কারো মুখে ছিল না কোনো মাস্ক। বিভিন্ন এলাকার মানুষের সমাগমে করোনার ঝুঁকি বাড়ার আশংকা রয়েছে। নৌকাবাইচের আয়োজক ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য কাউছার আহমেদের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, এটা তেমন কিছু না। এক্তারপুর নতুন নৌকা বানিয়েছে, তাই তারা আসাতে বুল্লার নৌকার সাথে একটি দৌড় দিয়েছে। তাদের আপ্যায়ন করে দিয়েছি ও সম্মানের জন্য পুলাপান একটি খাসি দিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কে এম ইয়াসির আরাফাত বলেন, দেশের এ অবস্থায় এ ধরনের আয়োজন করা ঠিক হয়নি। এ বিষয়টি সমন্ধে জানা নেই। খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, আগামী সপ্তাহ লোহর নদী ও হুগলি বিলে এক্তারপুর ও বুল্লা এ দুই গ্রামের মধ্যে আবারো নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা হওয়ার কথা রয়েছে।

Some text

ক্যাটাগরি: মতামত

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি