শুক্রবার রাত ১১:১৫, ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ. ১২ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং

বগুড়া-৬ (সদর) উপনির্বাচনে প্রচারণা শেষ, ভোট গ্রহণ ২৪ জুন

৪৯৪ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

বগুড়া-৬ (সদর) আসনে উপনির্বাচন আগামী ২৪ জুন। ওইদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ১৪১ কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হবে। শনিবার (২২ জুন) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সব কেন্দ্রে মক (রিহার্সেল) ভোটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া এদিন সকাল ৯টায় নির্বাচনি প্রচার-প্রচারণা শেষ হয়। সাত প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রতীক পাওয়ার পর গত কয়েকদিন প্রচারণা চালিয়েছেন। তাদের পক্ষে কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল নেতারাও প্রচারণায় অংশ নেন।

প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত এসএমটি জামান নিকেতা (নৌকা), বিএনপি মনোনীত গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টি মনোনীত নুরুল ইসলাম ওমর (লাঙ্গল)। এছাড়াও মুসলিম লীগ মনোনীত মুফতি রফিকুল ইসলাম (হ্যারিকেন), বাংলাদেশ কংগ্রেস মনোনীত মুনসুর রহমান (ডাব), স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজ মন্ডল (আপেল) ও সৈয়দ কবির আহেম্মদ মিঠু (ট্রাক)। এদের মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিঠু সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন।

প্রচারণায় প্রার্থীদের মধ্যে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ ও তার সমর্থকরা বলেছেন, ধানের শীষে ভোট দিলে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জেল থেকে মুক্তি পাবেন এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান দেশে ফিরে আসতে পারবেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থী এসএমটি জামান নিকেতা ও তার সমর্থকরা বলেছেন, বিএনপি প্রার্থী গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে এমপি থাকাকালে তার পরিবহন ব্যবসার স্বার্থে বগুড়া-সিরাজগঞ্জ রেলপথ ও বগুড়া বিমানবন্দর প্রকল্প বাস্তবায়ন হতে দেননি। তাই তিনি (নিকেতা) নির্বাচিত হলে এ দুটি প্রকল্প ছাড়াও পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন এবং চলমান প্রকল্পগুলোর গতি ত্বরান্বিত করবেন। জাতীয় পার্টির প্রার্থী নুরুল ইসলাম ওমর বলেছেন, তিনি ৫ বছর মহাজোটের এমপি থাকাকালে সাধ্যমতো বগুড়ার উন্নয়নে কাজ করেছেন। তিনি নির্বাচিত হলে এসব কাজ শেষ ছাড়াও আরও উন্নয়ন করবেন।

বগুড়ার সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মাহবুব আলম শাহ্ জানান, ২৪ জুন সব কেন্দ্রে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হবে। ১৪১টি কেন্দ্রের ৯৬৫ বুথে ভোটাররা ভোট দেবেন। এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৪৫৮ জন। এর মধ্যে ১ লাখ ৯১ হাজার ৬৬৮ জন পুরুষ এবং ১ লাখ ৯৫ হাজার ৭৯০ জন নারী। প্রতিটি বুথে একটি অতিরিক্ত ইভিএম থাকবে। ইভিএমে যেকোনও সমস্যা সমাধানে প্রতিটি কেন্দ্রে তিনজন টেকনিশিয়ান থাকবেন। তাদের দুজন সশস্ত্র বাহিনীর ও একজন নির্বাচন কমিশন থেকে। বগুড়া শহীদ চান্দু স্টেডিয়াম মিলনায়তনে কন্ট্রোল রুমে ২৬ সদস্যদের টেকনিক্যাল টিম থাকবে। কেন্দ্রে থাকা ওই তিন টেকনিশিয়ান কোনও কারণে ব্যর্থ হলে এ টিমের সদস্যরা সেখানে যাবেন। তিনি দাবি করেন, মক ভোটিং সন্তোষজনক হয়েছে। তিনি আশা করেন, ২৪ জুন শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হবে এবং ভোটার উপস্থিতি ভালো হবে।

কামরুল হাসান শান্ত : বিশেষ প্রতিনিধি

Some text

ক্যাটাগরি: মতামত

[sharethis-inline-buttons]

Leave a Reply

আমি প্রবাসী অ্যাপস দিয়ে ভ্যাকসিন…

লঞ্চে যৌন হয়রানি